hsc diploma in commerce 12 class economics 5th week assignment answer 2021, ডিপ্লোমা ইন কমার্স অর্থনীতি ১২শ শ্রেণির ৫ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ 2021

hsc diploma in commerce 12 class economics 5th week assignment answer 2021, ডিপ্লোমা ইন কমার্স অর্থনীতি ১২শ শ্রেণির ৫ম সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ 2021

Assignment এইচ এস সি পরীক্ষা প্রস্তুতি শিক্ষা
শেয়ার করুন:
শ্রেণি: HSC ইন কমার্স -2021 2022 বিষয়: অর্থনীতি এসাইনমেন্টের 2021
এসাইনমেন্টের ক্রমিক নংঃ 04
বিষয় কোডঃ 1726
বিভাগ: ভোকেশনাল

এসাইনমেন্ট শিরোনামঃ উৎপাদনের উপকরণসমুহের যথার্থ ব্যবহার এবং সঠিক শ্রমবিভাগের উপর প্রতিষ্ঠানের সাফল্য অনেকাংশে নির্ভরশীল” তার বিশ্লেষণ

শিখনফল/বিষয়বস্তু :

  • অধ্যায়ঃ ৪ উৎপাদন ও উৎপাদন ক্রম

নির্দেশনা (সংকেত/ ধাপ/ পরিধি): 

  • উৎপাদনের ধারণা এর ব্যাখ্যা করতে হবে।
  • উৎপাদনের উপকরণসমুহ উল্লেখপূর্বক এর ধারণা ব্যাখ্যা দিতে হবে।
  • শ্রমবিভাগ এর ধারণা ব্যাখ্যা দিতে হবে।
  • শ্রমবিভাগের সুবিধা বর্ণনা করতে হবে।

এসাইনমেন্ট সম্পর্কে যে কোন প্রশ্ন আপনার মতামত জানাতে পারেন আমাদের কে YouTube : Like Page ইমেল : assignment@banglanewsexpress.com

  • উৎপাদনের ধারণা এর ব্যাখ্যা করতে হবে।

সাধারণ অর্থে ‘উৎপাদন বলতে কোন কিছু সৃষ্টি করাকে বুঝায়। কিন্তু অর্থনীতিতে উৎপাদন বলতে শুধু সৃষ্টি করাকে বুঝায় । অর্থনীতিতে উৎপাদন বলতে কোন নির্দিষ্ট সময়ে কোন দ্রব্যের আকার ও আকৃতির পরিবর্তন করে দ্রব্যের উপযােগ সৃষ্টি করাকে উৎপাদন বলে।

প্রকৃতপক্ষে মানুষ কোন কিছু সৃষ্টি করতে পারে না। মানুষের আশে পাশে যা কিছু রয়েছে সবই প্রকৃতির দান। মানুষ কেবল মাত্র প্রকৃতি প্রদত্ত সম্পদের রূপগত, গুণগত, পরিমাণগত ও অবস্থানগত পরিবর্তনের মাধ্যমে নতুন উপযােগ সৃষ্টি করতে পারে বা ভবিষ্যতের জন্য মজুদ রেখে অতিরিক্ত উপযােগ সৃষ্টি করতে পারে।

এভাবে কোন দ্রব্যের আকার ও আকৃতি পরিবর্তন করাকে অর্থনীতিতে উৎপাদন বলে। যেমন- বন থেকে কাঠ সংগ্রহ করে আসবাবপত্র প্রস্তুত করে মানুষ কোন নতুন দ্রব্য বা পদার্থ সৃষ্টি করতে পারে না। শুধুমাত্র কাঠের আকার ও আকৃতি পরিবর্তন করে আসবাবপত্র তৈরী করে উপযােগ সৃষ্টি করা হয়েছে মাত্র।

অর্থাৎ আসবাবপত্র তৈরীর মাধ্যমেই কাঠের উপযােগ সৃষ্টি করা হলাে। সুতরাং অর্থনীতিতে উৎপাদন বলতে কোন দ্রব্য সৃষ্টি করাকে বুঝায় না; বরং দ্রব্যের আকার ও আকৃতি পরিবর্তন করে অধিক উপযােগ সৃষ্টি করাকে বুঝায়। বিভিন্ন অর্থনীতিবিদ উৎপাদনের বিভিন্ন সংজ্ঞা দিয়েছেন।

অধ্যাপক মার্শালের মতে, “এ বস্তু জগতে মানুষ প্রকৃতি প্রদত্ত বস্তুকে অধিকতর উপযােগী করে তােলার উদ্দেশ্যে এরূপ পূর্নবিন্যাস করে যাতে তাকে অধিকতর কার্যোপযােগী করা যায়।”

অধ্যাপক ডানিয়েল বি. সুইটস এর মতে, “উৎপাদন হলাে এমন একটি পদ্ধতি যা দ্বারা মানুষ প্রকৃতি প্রদত্ত বস্তুকে ভােগের উপযােগী করে তুলতে পারে।”

সুতরাং সংক্ষেপে বলা যায়, যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মানুষ প্রকৃতি প্রদত্ত সম্পদের সাথে নিজের শ্রম ও মূলধন নিয়ােগ করে। অধিকতর উপযােগ সৃষ্টি করে তাকে উৎপাদন বলে।

  • উৎপাদনের উপকরণসমুহ উল্লেখপূর্বক এর ধারণা ব্যাখ্যা দিতে হবে।

কোন কিছুর উৎপাদন উপকরণের উপর নির্ভর করে। আবার উৎপাদনের পরিমাণ উপকরনের পরিমাণের উপর নির্ভরশীল। সুতরাং আমরা বলতে পারি, কোন দ্রব্য উৎপাদন করতে গেলে যে সব বস্তুু বা সেবা কার্যের প্রয়োজন হয় তাদেরকেই যৌথভাবে উৎপাদনের উপকরণ বলা হয়।

উৎপাদনের উপকরণ সাধারণত: চার ভাগে ভাগ করা যায়।
(১) ভূমি (২) শ্রম
(৩) মূলধন এবং (৪) সংগঠন বা উদ্যোক্তা ।

এগুলোর বর্ণনা নিম্নে দেওয়া হলোঃ

১। ভূমি সাধারণ অর্থে ভূমি বলতে ভূপৃষ্ঠের উপরিভাগকেই বুঝায়। কিন্তুু অর্থনীতিতে ভূমি বলতে শুধুমাত্র ভূপৃষ্ঠের উপরিভাগকেই বুঝায় না বরং প্রাকৃতিক সব সম্পদকেই বুঝায়। অর্থাৎ অর্থনীতিতে ভূমি বলতে ভূপৃষ্ঠসহ, সূর্যকিরণ, বৃষ্টিপাত, বাতাস, নদনদী, সমুদ্র ও বনজ সম্পদ ইত্যাদি প্রকৃতির সকল অবাধ দান যা উৎপাদনের কাজে লাগে তাকে বুঝায়। ভূমির কতকগুলি গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হলোঃ (ক) ভূমি প্রকৃতির দান (খ) ভূমির যোগান দাম নেই (গ) ভূমি অবিনশ্বর (ঘ) ভূমি স্থানান্তর যোগ্য নয়, তবে মালিকানা হস্তান্তর যোগ্য (ঙ) অবস্থাগত কারণে ভূমির মূল্যের পার্থক্য হয় (চ) ভূমির যোগান সীমাবদ্ধ।

২। শ্রম শ্রম বলতে সাধারণত: মানুষের শারিরীক শ্রমকেই বুঝায়। কিন্তুু অর্থনীতিতে শ্রম বলতে উৎপাদন কাজে ব্যবহৃত মানুষের দৈহিক ও মানসিক সব শ্রমকেই শ্রম বুঝানো হয়। প্রকৃতপক্ষে শ্রম ছাড়া কোন উৎপাদনই সম্ভবপর নয়। শ্রম হলো উৎপাদনের অপরিহার্য্য উপাদান। শ্রমের কতকগুলো বৈশিষ্ট্য হলো-

(ক) শ্রম সংরক্ষণ যোগ্য নয় (খ) শ্রমিক থেকে শ্রম আলাদা করা যায় না (গ) শ্রম সংরক্ষণ করা যায় না বিধায় শ্রমিকের দর কষাকষির ক্ষমতা কম।

(৩) মূলধন (ঈধঢ়রঃধষ) মূলধন হলো উৎপাদনের তৃতীয় উপকরণ। সাধারণত: মূলধন বলতে টাকা পয়সা যা ব্যবসা কার্যে নিয়োজিত হয় তাকেই বুঝায়। কিন্তুু অর্থনীতিতে মূলধন বলতে, মানুষের শ্রম দ্বারা উৎপাদিত হয়ে যেসব দ্রব্য পূনরায় উৎপাদন কাজে ব্যবহৃত হয় তাকে বুঝায়। যেমন- যন্ত্রপাতি, কাঁচামাল, কলকারখানা প্রভৃতি মানুষের উৎপাদিত দ্রব্য যা পূনরায় উৎপাদন কাজে ব্যবহৃত হয়। মূলধনের কতগুলো গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হলোঃ

(ক) মূলধন প্রকৃতি প্রদত্ত নয়- এটি মানুষের সৃষ্টি (খ) এর উৎপাদন ব্যয় আছে (গ) মূলধনের উৎপাদন সময় সাপেক্ষ।

৪। সংগঠন (ঙৎমধহরুধঃরড়হ) বা উদ্যোক্তা (ঊহঃৎবঢ়ৎবহবঁৎ) উৎপাদনের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো সংগঠন। অর্থনীতিতে সংগঠন বলতে উৎপাদনের অপরাপর তিনটি মূল উপকরণ যথাভূমি, শ্রম ও মূলধনের আনুপাতিক সংগ্রহ, সংযোজন ও নিয়োগ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে কোন নির্দিষ্ট লক্ষ্য অর্জন করার যে সুনিপুণ প্রচেষ্টা তাকে বুঝায়। ভূমি, শ্রম ও মূলধন এই তিনটি উপাদানকে একত্রে করে যিনি উৎপাদন কাজ পরিচালনা করেন তাকে সংগঠক বা উদ্যোক্তা বলা হয়।

সংগঠন হলো একটি বিশেষ ধরনের শ্রম যার কতকগুলি বৈশিষ্ট্য আছে। যেমন- (ক) সংগঠন উৎপাদনের সাথে সম্পৃক্ত (খ) এটি একটি জীবন্ত উপকরণ (গ) উৎপাদনের সাথে ঝুঁকি বহনের মানুষিক সক্ষমতা (ঘ) সমাজের উদ্যোগী কর্মকুশল ও সম্পদশালী ব্যক্তিরা এর সাথে জড়িত।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

  • শ্রমবিভাগ এর ধারণা ব্যাখ্যা দিতে হবে।

শ্রমবিভাগ। আধুনিক বিশ্বে উৎপাদন ব্যবস্থার অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য হল শ্রমবিভাগ। উৎপাদন পদ্ধতিকে বিভিন্ন স্তরে ভাগ করে যােগ্যতা ও সামর্থ্য অনুযায়ী কাজ করতে দেওয়াকে শ্রমবিভাগ বলে। প্রাচীন সমাজে প্রতিটি লােক তার নিজের প্রয়ােজনীয় দ্রব্যাদি নিজেই উৎপাদন বা যােগাড় করত। কিন্তু আধুনিক কালে সূক্ষ ও জটিল উৎপাদন ব্যবস্থায় একজনকে একটি বিশেষ বৃত্তি অবলম্বন করতে হয়। যেমন- কেউ চাষী, কেউ তাঁতী, কেউ জেলে, কেউ কামার । ইতাদি। শিল্প বিপ্লবের পর আধুনিককালে শ্রমবিভাগ আরাে ব্যাপকতর হয়েছে।

বর্তমানে কোন দ্রব্যের সম্পূর্ণ উৎপাদন প্রক্রিয়াকে বিভিন্ন স্তরে ভাগ করে শ্রমিকদের সামর্থ্য ও যােগ্যতা অনুযায়ী তাদের মধ্যে কাজ ভাগ করে দেওয়া হয়। এটাকেই শ্রমবিভাগ বা শ্রমবিভাজন বলা হয়। বৃহদায়তন শিল্পের অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্যই হল শ্রমবিভাগ।

উৎপাদনের প্রতিটি পর্যায়ে বিভিন্ন শ্রমিক বিভিন্ন কাজ করে এবং দক্ষতা অর্জন করে। এভাবে একে অপরের সহযােগিতায় কাজ সম্পন্ন করে। একটি তৈরি পােশাক কারখানায় শ্রমবিভাগের ফলে কেউ কাপড় কাটে, কেউ শার্টের কলার তৈরি করে, কেউ হাতা তৈরি করে, কেউ বােতাম লাগায়, কেউ সংযােগ করে, কেউ ইস্ত্রি করে, কেউ প্যাকেট করে এভাবে অনেকগুলাে অসম্পূর্ণ প্রক্রিয়ায় শার্ট তৈরির কাজ সম্পূর্ণ হয়। ফলে, প্রত্যেকটি অংশের কাজে বিভিন্ন দলের লােক দক্ষতা অর্জন করে।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

  • শ্রমবিভাগের সুবিধা বর্ণনা করতে হবে।

শ্রমবিভাগের সুবিধাসমূহ।

১। এই ব্যবস্থায় মানুষ তার পছন্দমত কাজ বেছে নেবার সুযােগ পায়। কাজটি তার কাছে আকর্ষণীয় হয়। এ ধরনের কাজ সম্পন্ন করে তিনি আনন্দ পান; কাজের গুণগত মান বৃদ্ধি পায়।

২। মােট কাজের একটি বিশেষ অংশ বা একই ধরনের ক্ষুদ্র কাজে আত্মনিয়ােগের ফলে শ্রমিকের পক্ষে সেই কাজে পারদর্শিতা বা দক্ষতা অর্জন করা সহজতর হয় এবং ভবিষ্যতে আরাে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য সচেষ্ট হতে পারেন।

৩ শ্রমবিভাগের অন্য একটি সুবিধা হল এই যে, এ ব্যবস্থায় শিক্ষানবিশ হিসেবে কম সময় লাগে।

৪। প্রত্যেকে তার দক্ষতা অনুযায়ী কাজ পায়। সকল ধরনের কাজের একইরূপ যােগ্যতা লাগে না বা সকল মানুষের যােগ্যতা সমান নয়। তাই যাকে দিয়ে যেমন কাজ করা সম্ভব তাকে সে কাজে নিয়ােগ করা যায়। বিভিন্ন ধরনের কাজে অনেককে লাগানাে সম্ভব হয়। অর্থাৎ উপাদান হিসেবে শ্রমিকদের ব্যবহার সর্বাধিক পর্যায়ে আনা সম্ভব হয়।

৫৷ এই ব্যবস্থায় নতুন যন্ত্র আবিষ্কারের পথ সুগম হয়।

৬। শ্রমবিভাগের ফলে শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলাের শ্রমিকগণ সহজেই এক শিল্প প্রতিষ্ঠান থেকে অন্য শিল্প প্রতিষ্ঠানে যেতে পারে। এভাবে শ্রমের গতিশীলতা বৃদ্ধি পায়।

৭ দ্রব্যের উৎপাদন বৃদ্ধি পায় ও মূল্য কমে।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

এসাইনমেন্ট সম্পর্কে যে কোন প্রশ্ন আপনার মতামত জানাতে পারেন আমাদের কে YouTube : Like Page ইমেল : assignment@banglanewsexpress.com

অন্য সকল ক্লাস এর অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর সমূহ :-

  • ২০২১ সালের SSC / দাখিলা পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ২০২১ সালের HSC / আলিম পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ভোকেশনাল: ৯ম/১০ শ্রেণি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • HSC (বিএম-ভোকে- ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স) ১১শ ও ১২শ শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ২০২২ সালের ১০ম শ্রেণীর পরীক্ষার্থীদের SSC ও দাখিল এসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ২০২২ সালের ১১ম -১২ম শ্রেণীর পরীক্ষার্থীদের HSC ও Alim এসাইনমেন্ট উত্তর লিংক

৬ষ্ঠ শ্রেণীর এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১ , ৭ম শ্রেণীর এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১ ,

৮ম শ্রেণীর এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১ , ৯ম শ্রেণীর এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় SSC এসাইনমেন্ট :

বিজ্ঞান ১ম ও ২য় বর্ষের এসাইনমেন্ট, ব্যবসায় ১ম ও ২য় বর্ষের এসাইনমেন্ট, মানবিক ১ম ও ২য় বর্ষের এসাইনমেন্ট

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় HSC এসাইনমেন্ট :

মানবিক ১ম ও ২য় বর্ষের এসাইনমেন্ট, বিজ্ঞান ১ম ও ২য় বর্ষের এসাইনমেন্ট , ব্যবসায় ১ম ও ২য় বর্ষের এসাইনমেন্ট

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *