একমালিকানা ব্যবসা কি তা সংক্সেপে লিখবে,সফল হওয়ার কারণ সমূহ,অসুবিধা সমূহ বর্ণনা করবে।

একমালিকানা ব্যবসা কি তা সংক্সেপে লিখবে,সফল হওয়ার কারণ সমূহ,অসুবিধা সমূহ বর্ণনা করবে।

এইচ এস সি পরীক্ষা প্রস্তুতি শিক্ষা
শেয়ার করুন:

২। মি. করিম সাহেব একজন সফল ব্যবসায়ী। তিনি নিজে
ব্যবসায়ে মূলধন সংগ্রহ করেছেন এবং একাই ব্যবসা পরিচালনা করেন। মি. করিমের কি ধরণের ব্যবসা ?

নির্দেশনাঃ-

১. একমালিকানা ব্যবসা কি তা সংক্সেপে লিখবে ?

উত্তর :

ব্যবসায়ের সর্বাধিক সাধারণ এবং সহজতম রূপটি একক মালিকানা বা একমালিকানা ব্যবসা। এক মালিকানা ব্যবসায় মূলত একজন ব্যক্তি মালিক থাকে এবং ঐ ব্যক্তি সমস্ত ব্যবসাটিকে পরিচালনা করেন। ব্যবসায় লাভ হোক বা ক্ষতি হোক সমস্ত দায় মালিকের উপর পরবে।

একমালিকানা ব্যবসার সাধারন বৈশিষ্ট্য হচ্ছে সহজেই শুরু করা যায়, শুধুমাএ একজন মালিক থাকবে, স্বল্প মূলধন থাকবে, সমস্ত ঝুঁকি নিজের উপর থাকবে, এবং নমনীয়তা থাকবে। খুচরো খাতের অনেক ব্যবসাই একক মালিকানা হয়ে থাকে। যেমন, পঁচনশীল দ্রব্যের ব্যবসা, কৃষি পণ্যের ব্যবসা, প্রত্যক্ষ সেবামূলক ব্যবসা বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

বি:দ্র; উত্তর দাতার নাম: রাকিব হোসেন সজল 


২. একমালিকানা ব্যবসা সফল হওয়ার কারণ সমূহ লিখবাে ?

উত্তর :

১। কম পুঁজি দিয়ে ব্যবসা শুরু করা যায়।

২। ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা থাকে।

৩। নিজেই নিজের বস এবং কারো কাছে কোনও কিছুই জন্য জবাবদিহিতা করতে হয় না।

৪। আপনি আপনার ব্যবসা কিভাবে পরিচালনা করতে তা কেউ জানবে না, অর্থাৎ ব্যবসা পরিচালনার গোপনীয়তা বজায় থাকে।

৫। ব্যবসা থেকে প্রাপ্ত মুনাফার একক মালিকানা। আপনি যত টাকা ব্যবসা থেকে লাভ করবেন এর কোনও অংশ অন্য কাউকে দিতে হবে না।

৬। ব্যবসার দরকারে দ্রুত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা যায়। অনেক সময় ব্যবসার মধ্যে হুট করে সিদ্ধান্ত নিতে হয় যা একমাএ একমালিকানা ব্যবসায় দ্রুত করা যায়।

৭। ব্যবসাটি সহজে বিক্রি করে দেওয়া যায়। একক মালিকানা ব্যবসা কেনা-বেচা সহজ, কেননা এখানে অন্য কোনও ব্যক্তির মতামত বা সিন্ধান্ত নেওয়ার দরকার হয় না

৮. অল্প পুজি


৯. নিজের নামে ব্যবসা পরিচালনা ইত্যাদি।

বি:দ্র; উত্তর দাতার নাম: রাকিব হোসেন সজল 


৩. ব্যক্তিগত ব্যবসায়ে অসুবিধা সমূহ বর্ণনা করবে।

উত্তর :

১। ব্যবসার দরকারে যথেষ্ট পুঁজি একজন ব্যক্তির পক্ষে সংগ্রহ করা কষ্টসাধ্য ব্যাপার, ফলে ব্যবসাটির পরিধি বড় করা কঠিন হয়ে যায়।

২। সীমাহীন দায়বদ্ধতা। একমালিকানা ব্যবসায় ব্যক্তি ও ব্যবসা আলাদা কিছু না। ফলে ব্যবসায় ক্ষতি হলে সেই ক্ষতি সরাসরি মালিকের উপরেই পরবে এবং মালিকের কোন ক্ষতি হলে সেই ক্ষতি সরাসরি ব্যবসার উপরে পরবে।

৩। কোনও বিজনেস পাটনার না থাকায় ব্যবসার সম্পূর্ণ ঝুঁকি নিজেকেই নিতে হবে। এছাড়া মালিকের অনভিজ্ঞতার কারণে ব্যবসার ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৪। ধারাবাহিকতা অভাব। একজন ব্যক্তির পক্ষে সব সময় একই ধারাবাহিকতা বজায় রাখা যথেষ্ট কঠিন। বিশেষ করে সময় ব্যবস্থপনা করা অনেক কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে যায়।

  1. ব্যবসায়ের debtsণ এবং দায়বদ্ধতার জন্য সীমাহীন ব্যক্তিগত দায়বদ্ধতা
  2. সংযুক্ত সংস্থাগুলির মতো কর সুবিধাগুলি দুর্দান্ত নয়
  3. ব্যবসায়িক মামলায় ব্যক্তিগত সম্পত্তি ঝুঁকির মধ্যে থাকতে পারে
  4. মালিকের মৃত্যুর পরে ব্যবসাটি সমাপ্ত হয়


“বাইরের” মূলধন সংগ্রহ এবং বিনিয়োগকারীদের বিশ্বাস অর্জন করা অত্যন্ত কঠিন হতে পারে
যদি আপনার উদ্দেশ্য আপনার কোম্পানিকে কোনও উপায়ে বৃদ্ধি করা, করের সুবিধাগুলি পুনরুদ্ধার করা, আপনার সম্পদ আইনী এবং আর্থিক দায়বদ্ধতা থেকে রক্ষা করা এবং সম্ভাব্য বিনিয়োগকারীদের একটি পেশাদারভাবে সংগঠিত এবং পরিচালিত ব্যবসায়ের প্রতি আকৃষ্ট করা হয়, তবে আপনার ব্যবসায়কে অন্তর্ভুক্ত করা আপনার পক্ষে সঠিক!

বি:দ্র; উত্তর দাতার নাম: রাকিব হোসেন সজল 
শেয়ার করুন:

2 thoughts on “একমালিকানা ব্যবসা কি তা সংক্সেপে লিখবে,সফল হওয়ার কারণ সমূহ,অসুবিধা সমূহ বর্ণনা করবে।

আপনার মূল্যবান মতামত দিন