ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন পদ্ধতি,ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি,ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন এর বিনিয়োগের পদ্ধতি,১০ দিনে ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি,বাংলাদেশে ইসলামী ব্যাংক লোন বা ইনভেস্টমেন্ট,ইসলামী ব্যাংক লোন পাওয়ার জন্য যা প্রয়োজন বা শর্ত?

ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন পদ্ধতি,ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি,ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন এর বিনিয়োগের পদ্ধতি,১০ দিনে ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি,বাংলাদেশে ইসলামী ব্যাংক লোন বা ইনভেস্টমেন্ট,ইসলামী ব্যাংক লোন পাওয়ার জন্য যা প্রয়োজন বা শর্ত?

প্রশ্ন সমাধান শিক্ষা

বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস এর সর্বশেষ আপডেট পেতে Google News অনুসরণ করুন

শেয়ার করুন:

প্রশ্ন সমাধান: ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন পদ্ধতি,ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি,ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন এর বিনিয়োগের পদ্ধতি,১০ দিনে ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি,বাংলাদেশে ইসলামী ব্যাংক লোন বা ইনভেস্টমেন্ট,ইসলামী ব্যাংক লোন পাওয়ার জন্য যা প্রয়োজন বা শর্ত?

১০ দিনে ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি

ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি অর্থাৎ ইসলামী ব্যাংক লোন কিভাবে দেয়। অনেকেই জানতে চান। ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি। ইসলামী ব্যাংক কি প্রচলিত ব্যাংকের মতন লোন বা ঋণ দেয় বা ভিন্ন পদ্ধতি লোন দেয়? এসব প্রশ্নের আলোকে আজকে আমাদের এই ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি আর্টিকেল। আশাকরি আপনারা শেষ পর্যন্ত পড়লে, অনায়াসে লোন কিভাবে নিতে হয় সেটা খুব সহজে জানতে পারবেন।

বাংলাদেশে ইসলামী ব্যাংক লোন বা ইনভেস্টমেন্ট

ইসলামি ব্যাংক সাধারনত অন্যান্য ব্যাংকের মতন নয়। এখানে লোনের ধারনা ভিন্ন। এখানে লোন না দিয়ে, তারা ইনভেস্টমেন্টের মাধ্যমে আপনার কাজে সহায়তা করে থাকে। সুধ হারাম তাই, ইসলামী ব্যাংক ইসলামের অাইনে টাকা দিয়ে থাকে। ইসলামী ব্যাংক লোন নেওয়া পদ্ধতি খুব সহজ।

ইসলামী ব্যাংক লোন পাওয়ার জন্য যা প্রয়োজন বা শর্ত?

ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতির এই আর্টিকেলে আপনাদের লোন সম্পর্কে বিস্তারিত প্রশ্নগুলোর উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে তাই পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ার অনুরোধ রইল। আপনাদের সুবিধার জন্য ইসলামী ব্যাংক লোন এর প্রতি বিষয় সুন্দর করে তুলে ধরা হয়েছে।

• ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার কারণ।
• ইসলামী ব্যাংক লোনে আইন কানুন কতটুকু মেনে চলে।

• ইসলামী ব্যাংক লোন নেওয়ার জন্য মাসিক আয়।
• ইসলামী ব্যাংক লোন নেওয়ার জন্য যেসব কাগজ পত্র প্রয়োজন।
• ইসলামী ব্যাংক হোম বা বাড়ি লোন নেয়ার পদ্ধতি।
• ইসলামী ব্যাংকে ছাত্র ছাত্রী লোন পদ্ধতি।

ইসলামী ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার কারণ

প্রায় সকল কাজে ইসলামী ব্যাংক লোন দিয়ে থাকে, যেমন – বাড়ি-গাড়ি কেনা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করা, লেখাপড়া চালিয়ে করার জন্য ইসলামী ব্যাংক লোন দিয়ে থাকে। এখন আপনি ঠিক কোন কারণে লোন নিবেন, সে করণ দেখাতে হবে। কারণ ছারা ইসলামী ব্যাংক আপনাকে লোন দিবে না। লোন দেওয়ার একটি সুন্দর নিয়ম আছে ইসলামী ব্যাংকের। আমরা জনি ব্যাংক লোনের কিছু আইন কানুন আছে। ইসলামী ব্যাংক লোনে আইন কানুন কতটুকু মেনে চলে নিম্নে তা দেওয়া হলো।

ইসলামী ব্যাংক লোনে আইন কানুন কতটুকু মেনে চলে

ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি যেমন সহজ, তেমনি লোনের কিছু নিয়ম কানুন আছে। সরকারি বিধি নিষেধ কতটুকু মেনে চলছে তার ওপর নির্ভর করছে আপনার লোন দেওয়া বা না দেওয়া। তাই দেশের আইন, বিধি-নিষেধ মেনে চলা অপরিহার্য শর্ত। যেহেতু আপনাকে লোন দিবে, তাই আমার লোন এর টাকা ব্যাক দেওয়ার খমতা আছে কি না, তা যাচাই করে দিবে। ইসলামী ব্যাংক লোন নেওয়ার জন্য মাসিক আয় কত লাগবে তা নিম্নে দেওয়া হলো।

ইসলামী ব্যাংক লোন নেওয়ার জন্য মাসিক আয়

যেহেতু আপনি লোন নিবেন, তাই আপনার মাসিক আয় ব্যাংকের কাছে তুলে ধরতে হবে। ইসলামি ব্যাংক থেকে লোন নিতে হলে আপনার মাসিক আয় দেখাতে হবে। প্রয়োজন মত বা শর্ত মাফিক মাসিক আয় না থকলে লোন গ্রহণ করতে পারবেন না। ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে হলে প্রথমে আপনাকে জানতে হবে, লোন নেওয়ার জন্য যেসব কাগজ পত্র প্রয়োজন। ইসলামী ব্যাংক লোন নেওয়ার জন্য যেসব কাগজ পত্র প্রয়োজন তা নিম্নে দেওয়া হলো।

ইসলামী ব্যাংক লোন নেওয়ার জন্য যেসব কাগজ পত্র প্রয়োজন

ব্যাংকের কাজে সকল ক্ষেত্রে কাগজ পত্রের প্রয়জন। ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতির আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো প্রয়জনীয় কাগজ পত্র। যেমন –
১. বেতন স্টেটমেন্ট।
২. বর্তমান আর্থিক অবস্থা।
৩. জাতীয় পরিচয় পত্র (ভোটার আইডি কার্ড)
৪. ব্যবসার ক্ষেত্রে সরকারি অনুমোদন পত্র।
৫. আপনার বাসা শহর বা পৌরসভার মধ্যে থাকলে সহজে লোন পেয়ে যাবেন।
৬. আপনার সাথে একজন গ্যারান্টি বা সাক্ষী থাকা আবশ্যক।
৭. ইসলামি ব্যংক থেকে লোন নিতে হলে আপনার বয়স ২১ থেকে ৬৫ এর মধ্য হতে হবে।

ইসলামী ব্যাংক হোম বা বাড়ি লোন নেয়ার পদ্ধতি

ইসলামী ব্যাংকে বাড়ি তৈরীর জন্য ঋণ নিতে হলে আপনাকে অবশ্যই যে বিষয় গুলো সম্পর্কে আগে জানতে হবে তা বিস্তারিত নিচে দেওয়া হল। ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি এর মধ্যে এটি অধিক নেওয়া হয়।

১. উপার্জনক্ষম ব্যক্তি হতে হবে।
২. ঋণ নিয়ে পরিশোধের সক্ষমতা থাকতে হবে।
৩. ঋণ নিয়ে বাড়ি ক্রয় করলে ইসলামি ব্যাংক বাড়ি ক্রয়ের।
৪. মোট খরচের 60% ব্ল সহযোগিতা করতে পারে। যার পরিমাণ সর্বোচ্চ 20 লক্ষ টাকা।
৫. বাড়ি তৈরির ক্ষেত্রে মোট খরচের 60% লোন দিবে ইসলামি ব্যাংক । যার পরিমাণ সর্বোচ্চ 30 লক্ষ টাকা।

ইসলামী ব্যাংক ছাত্র ছাত্রী লোন পদ্ধতি

ইসলামি ব্যাংকে স্টুডেন্ট লোন পদ্ধতি রয়েছে। তারা যাতে অর্থাভাবে ঝড়ে না পড়ে, সে এ ঋণের ব্যবস্হা রয়েছে। বিস্তারিত জানতে নিকটস্থ শাখায় কন্টাক্ট করুন।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি

ইসলামী ব্যংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি ২০২২। বাংলাদেশের অনেকগুলো ব্যাংক রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম ব্যাংক হচ্ছে ইসলামি ব্যাংক। ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি খুবই সহজ। এদেশের প্রতিটি ব্যাংক নাগরিকদের বিভিন্ন প্রকার লোন সুবিধা দিয়ে থাকে ইসলামি ব্যাংকও ব্যতিক্রম নয়। ইসলামি ব্যাংক বাংলাদেশের একমাত্র হালাল ও ইসলামী শরিয়া ব্যাংক। তবে ইসলামী ব্যাংক নিয়ে অনেকের কাছে অভিযোগ রয়েছে,ইসলামী ব্যাংক তাদের প্রতারনা করেছে,হালাল নাম দিয়ে তারা সুদ গ্রহন করে। জানা থাকা দরকার বিশ্বের সবগুলো ব্যাংক সুদের উপর নির্ভরশীল। সুদ ছাড়া প্রতিটি ব্যাংক  অচল। ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন নিবেন, সুদ তো দিতেই হবে। ইসলামী ব্যাংক এটাকে সরাসরি লোন হিসাবে বিবেচিত করেনা,এই লোন সুবিধাকে তারা ইনভেস্টমেন্ট বা বিনিয়োগ বলে থাকে। অন্যান্য ব্যাংকের মত ইসলামী ব্যাংকও  প্রবাসীদের লোন সুবিধা প্রদান করে থাকে। ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি নিম্নে আলোচনা করা হলো।

ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি

• প্রবাসী বাংলাদেশী উদ্যোক্তা বিনিয়োগ প্রকল্প  কি কি উদ্দেশ্য নিয়ে ইসলামী ব্যাংক এ লোন দিয়ে থাকে। ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি নিচে দেওয়া হলো।
• ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যাক্তা( এসএমই) বিনিয়োগকে উৎসাহিত করতে।
• দারিদ্র্য বিমোচন এবং প্রবাসী উন্নয়নকে উৎসাহিত করা/দেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা
• প্রবাসীদের  (NRBs) বিনিয়োগ সুবিধা সম্প্রসারণ এবং IBBL এর মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা আদান প্রদান কার।
• উদ্যোক্তা উন্নয়ন তৈরি করা
• ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে বৈদেশিক রেমিট্যান্স প্রদানে উৎসাহিত করা এবং অর্থ পাচার বন্ধ করা।

• সকল প্রবাসীর ও সন্তানদের জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা।

ইসলামী ব্যাংক যে সকল খাতে লোন দেয়?

ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড ইসলামী শরিয়া মোতাবেক যে সকল খাতে লোন বা বিনিযোগ দিয়ে থাকে। ইসলামী ব্যাংক লোন পদ্ধতি খুবই সহজ। নিম্নে আলোচনা করা হলো

• ডাক্তার লোন স্কিম (ISD)
• মহিলা উদ্যোক্তা লোন স্কিম (WEIS)
• মাইক্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লোন স্কিম (MIIS)
• উদ্যোক্তা লোন স্কিম (NEIS)
• কৃষি বাস্তবায়ন লোন স্কিম (AIIS)
• ছোট ব্যবসা লোন স্কিম (SBIS)
• রিয়েল এস্টেট লোন প্রোগ্রাম (REIP)

• গাড়ী লোন স্কিম (CIS)
• ট্রান্সপোর্ট লোন স্কিম (TIS)
• রিয়েল এস্টেট লোন (বাণিজ্যিক ও কার্যকরী মূলধন)
• হাউস হোল্ড লোন স্কিম
• ইসলামী ব্যাংক কৃষি লোন

ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন কারা পাবেন ?

যেহেতু এটি প্রবাসী লোন, তাই বাংলাদেশের যে কনো নাগরিক যারা দীর্ঘদিন বিদেশে বসবাস করেন তারাই এ লোন নিতে পারবেন। ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন এর জন্য আপনি যে দেশে বসবাস করেন তার সে দেশের ভিসা ও পাসপোর্ট থাকতে হবে। আপনি যে কোম্পানীতে চাকরি করেন সে কোম্পানীর বেতন রশিদ,নিয়োগ পত্রসহ প্রয়োজনীয় অন্যান্য ডুকুমেন্ট থাকতে হবে। আবার যে সকল প্রবাসী ইসলামী ব্যাংকের সাথে টাকা লেনদেন করে তাদের জন্য বিশেষ অগ্রাধিকার দেয় । এই লোন পাওয়ার জন্য ২ জন আপনার আত্মীয় গ্যারান্টার থাকতে হবে এবং তাদের আর্থিকভাবে স্বাভলম্বী হতে হবে। এই ছিলো ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতির নিয়ম।

ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন এর বিনিয়োগের পদ্ধতি

আগেই বলেছি যে, ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি খুবই সহজ। নিম্নে ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন এর বিনিয়োগ পদ্ধতি দেওয়া হলো।

১. মেয়াদী বিনিয়োগ: HPSM
২. বাণিজ্যিক অর্থায়ন: 
৩. কাজের মূলধন: বাই

ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন এর বিনিয়োগের সময়কাল

আমরা খুব সহজে ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন পদ্ধতি জেনে, লোন নিয়ে সর্বোচ্চ 10 বছর  বিনিয়োগ মেয়াদ কাল। যেমন-

• বিনিয়োগের পরিমাণ ৫ লক্ষ টাকা থেকে ১০ কোটি
• ওয়ার্কিং ক্যাপিটাল এবং ট্রেড ফাইন্যান্সিং: সর্বোচ্চ ১ (এক) বছর

ইসলামী ব্যাংক প্রবাসী লোন এর জন্য কিভাবে আবেদন করতে হবে ?

প্রবাসী লোন পেতে হলে আপনাকে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের এর যে কনো শাখা থেকে আবেদনপত্র সংগ্রহ করতে হবে। তারপর সঠিক নিয়মে আবেদনপত্রটি পূরন করে প্রয়োজনী কাগজপত্র জমা দিতে হবে। প্রয়োজনে ফোন করতে পারেন, ইসলামী ব্যাংক হেল্পলাইন নাম্বার হচ্ছে ১৬২৫৯ বা ০৯৬১১০১৬২৫৯ ।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন পদ্ধতি

ইসলামি ব্যাংক লোন পদ্ধতি অনেক সহজ হলেও আপনাকে জেনে বুঝে নিতে হবে। ইসলামি ব্যাংক অনেক কিছু বিষয় এর উপর লোন দিয়ে থাকে। তার মধ্যে একটি হলো – ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন। এই লোন টি নেওয়ার জন্য আপনাকে একজন চাকরিজীবি হতে হবে। যেখান থেকে প্রতি মাসে আপনাকে বেতন দেওয়া হয়। আপনারা যারা ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন নিতে চান, তাদের আগে জানা প্রয়জন যে,  ইসলামি ব্যাংক স্যালারি লোন কি?

ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন কি?

আপনারা এখন সকলে মনে মনে ভাবছেন যে, ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন কি? এবং তা সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানতে চাই। আমি তো আছি আপনাদের মনের কথা জানানোর জন্য। নিমন্নে ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন কি? তা দেওয়া হলো।

ইসলামী ব্যাংক আপনাকে আপনার বেতনের উপর বেতন লোন দেয় তাকে স্যালারি লোন বলে। আপনি যদি বেতনভূক্ত কর্মচারী হন তবে আপনি এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারেন। সহজ কথা হলো, আপনি এক চাকরি করেন এবং চাকরি স্থল থেকে মাসে মাসে বেতন পান, তাহলে আপনি এই লোন টি নিতে পারবেন। নিম্নে ইসলামি ব্যাংক স্যালারি লোন নেওয়ার জন্য সর্বনিম্ন বয়স কত হতে হবে তা দেওয়া হলো।

স্যালারি লোনের জন্য আবেদনের সর্বনিম্ন বয়স

ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোনের জন্য আপনার বয়স প্রযোজ্য হবে সর্বনিম্ন ২২ বছর এবং সর্বোচ্চ ৬০ বছর। সর্বোচ্চ ৬০ বছর ধরা হয় মেয়াদ শেষ হওয়ার সময় পর্যন্ত। সহজ কথা হলো, আপনি যখন ইসলামি ব্যাংক স্যালারি লোনের জন্য আবেদন করবেন। সেই সময়ের বয়স থেকে আপনার লোন পরিশোধ এর সময় সেস এর দিন ৬০ বছর এর মধ্যে থাকতে হবে। নিম্নে ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন এর জন্য মাসিক বেতন কত হতে হবে তা দেওয়া হলো।

ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন এর জন্য মাসিক বেতন কত হতে হবে?

আপনি এখন ভাবছেন ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন নিতে হলে মাসিক বেতন কত হতে হবে? আপনার এই প্রশ্নের উত্তর আমি দিয়ে দিতেছি। আমি তো আছি আপনাদের সকল প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য। ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোনের আবেদন করতে হলে আপনাকে সর্বনিম্ন 30,000 টাকা বেতন এর চাকরি করতে হবে। বাহ! আপনরা তো সব কিছুই জেনে নিলেন। এখন নিম্নে আমরা জানবো ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোনের বৈশিষ্ট্য।

ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন এর বৈশিষ্ট্য

– সর্বনিম্ন ঋণের পরিমাণ 2,00,000 /
– এবং সর্বোচ্চ 20,000,000 /
– কোন জামানত নেই
12 থেকে 60 মাসের জন্য সহজ মাসিক কিস্তি (ইএমআই)

ইসলামী ব্যাংক স্যালারি লোন এর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

লোন নেওয়ার জন্য আপনাকে ব্যাংকের নিয়মে কিছু ডুকুমেন্ট জমা দেওয়া লাগে। যেমন-

  • গত 12 মাসের ব্যাংক বিবৃতি (বেতন অ্যাকাউন্ট)
  • স্যালারি সার্টিফিকেট / চিঠির ভূমিকা
  • পে স্লিপ
  • জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি
  • ফটো
  • বিদ্যুৎ বিলের ফটোকপি
  • ই টিন ( 5 লক্ষ টাকার বেশি লোনের জন্য)
  • গ্যারান্টর
  • 2 জন রেফারেন্স

প্রশ্ন ও মতামত জানাতে পারেন আমাদের কে ইমেল : info@banglanewsexpress.com

আমরা আছি নিচের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুলোতে ও

শেয়ার করুন:

বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস এর সর্বশেষ আপডেট পেতে Google News অনুসরণ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.