২০২২ সালের এসএসসি ভোকেশনাল ও দাখিল পরীক্ষার্থীদের রসায়ন (২) ৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১, ১০ম শ্রেণি [৪র্থ সপ্তাহের] রসায়ন (২) উত্তর সমাধান ২০২১

২০২২ সালের এসএসসি ভোকেশনাল ও দাখিল পরীক্ষার্থীদের রসায়ন (২) ৪র্থ সপ্তাহের এসাইনমেন্ট সমাধান ২০২১, ১০ম শ্রেণি [৪র্থ সপ্তাহের] রসায়ন (২) উত্তর সমাধান ২০২১

Assignment এসএসসি পরীক্ষা প্রস্তুতি শিক্ষা
শেয়ার করুন:
শ্রেণি: ১০ম ভোকেশনাল দাখিল 2022 বিষয়: রসায়ন (২) এসাইনমেন্টেরের উত্তর 2021
এসাইনমেন্টের ক্রমিক নংঃ 01 বিষয় কোডঃ 1926
বিভাগ: ভোকেশনাল শাখা
বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস// https://www.banglanewsexpress.com/

এসাইনমেন্ট শিরোনামঃ ব্যবহার্য পদার্থের ওপর অম্ল ও ক্ষার জাতীয় দ্রব্যের গুরুত্ব বিশ্লেষণ কর

অ্যাসাইনমেন্ট/ শিরো নাম : ব্যবহার্য পদার্থের ওপর অম্ল ও ক্ষার জাতীয় দ্রব্যের গুরুত্ব বিশ্লেষণ কর

শিখনফল/বিষয়বস্তু :

  • অম্ল ও ক্ষারের বৈশিষ্ট্য ব্যাখ্যা করতে পারবে,
  • অম্ল ও ক্ষার জাতীয় পদার্থের পার্থক্য করতে পারবে,
  • পরিচিত পরিবেশের পদার্থগুলাের মধ্য থেকে অম্ল ও ক্ষার শনাক্ত করতে পারবে,
  • গৃহস্থালি ব্যবহার্য পদার্থের ওপর অম্ল ও ক্ষার জাতীয় দ্রব্যের প্রভাবের আর্থিক গুরুত্ব মূল্যায়ণ করতে পারবে,

নির্দেশনা (সংকেত/ ধাপ/ পরিধি): 

  • অম্ল ও ক্ষারের বৈশিষ্ট্য বর্ণনা করতে পারবে,
  • অম্ল ও ক্ষার জাতীয় পদার্থের পার্থক্য করতে পারবে,
  • পরিচিত পরিবেশের পদার্থগুলাের মধ্য থেকে অম্ল ও ক্ষার শনাক্তকরণ করতে পারবে,
  • গৃহস্থালি ব্যবহার্য পদার্থের ওপর অল্প ও ক্ষার জাতীয় দ্রব্যের প্রভাবের আর্থিক গুরুত্ব বর্ণনা করতে পারবে,

এসাইনমেন্ট সম্পর্কে প্রশ্ন ও মতামত জানাতে পারেন আমাদের কে Google News <>YouTube : Like Page ইমেল : assignment@banglanewsexpress.com

  • অম্ল ও ক্ষারের বৈশিষ্ট্য বর্ণনা করতে পারবে,

অম্ল বা এসিড হল এমন একটি অণু বা আয়ন যা প্রোটন হাইড্রোজেন আয়ন (H+)  দান করতে সক্ষম হয়, অথবা, বিকল্পভাবে, সমবায়ু গঠনে সক্ষম। 

অম্ল বা এসিড এমন  এক ধরনের  রাসায়নিক পদার্থ যেখানে এক বা একাধিক হাইড্রোজেন পরমাণু থাকে এবং সেই সকল  হাইড্রোজেন পরমানু ধাতু বা যৌগমূলক দ্বারা আংশিক বা সম্পূর্ণরূপে প্রতিস্থাপিত করা হয়ে থাকে । যে সকল হাইড্রোজেন  পরমানু ক্ষারকের সাথে প্রশমন বিক্রিয়া করে লবণ ও জল উৎপন্ন করে তাকে অম্ল বা এসিড বলে।অর্থাৎ এসিড ক্ষারকের সাথে প্রশমন বিক্রিয়া করে লবন এবং পানি উৎপন্ন করে।

এসিড শব্দের অর্থ টক অর্থাৎ সকল টক স্বাদযুক্ত খাবারের মধ্যে এসিড বিদ্যমান থাকে।যেমন, তেতুল,লেবু প্রভৃতি টক স্বাদযুক্ত অর্থাৎ এসকল কিছুর মধ্যে এসিড বিদ্যমান। এসিড  শব্দটির উৎপত্তি অ্যাসিডাস (Acidus) হতে, যার অর্থ টক। 

তেতুল এবং লেবু জাতীয় ফলের মধ্যে  অতি অল্প মাত্রায় এসিড (জৈব এসিড)থাকে যার ফলে এই এসিড  ক্ষতিকারক নয়। কিন্তু পরীক্ষাগারে বিভিন্ন এসিড ব্যবহার করা হয়ে থাকে  (যেমন : হাইড্রোক্লোরিক অ্যাসিড(HCL), সালফিউরিক অ্যাসিড (H2SO4) ইত্যাদি)  এই সকল এসিড তীব্র এসিড হওয়ায় অত্যন্ত ক্ষতিকারক। এই সকল এসিড  অজৈব বা খনিজ অ্যাসিড বলেও পরিচিত । 

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

  • অম্ল ও ক্ষার জাতীয় পদার্থের পার্থক্য করতে পারবে,

১। এসিড জলীয় দ্রবণে হাইড্রোজেন আয়ন(H+) দান করে, ক্ষারক জলীয় দ্রবণে হাইড্রোক্সিল(OH-) আয়ন দান করে। (আরহেনিয়াস মতবাদ)

২। এসিড প্রোটন দান করতে পারে আর ক্ষারক প্রোটন গ্রহণে সক্ষম।(ব্রাউনস্টেড-লাউরি মতবাদ)

৩। এসিড ইলেক্ট্রণ যুগল গ্রহণ করতে পারে। অপরদিকে ক্ষারক ইলেকট্রন যুগল দানের সক্ষমতা রাখে। (লুইস মতবাদ)

৪। লেবুর জুস, হাইড্রোক্লোরিক এসিড ইত্যাদি এসিডের উদাহরণ। আর ক্ষারের উদাহরণ হলো বেকিং সোডা, ম্যাগনেসিয়াম হাইড্রোক্সাইড ইত্যাদি।

৫। এসিডের পিএইচ সীমা ০ থেকে ৬.৯ পর্যন্ত। আর ক্ষারের পিএইচ সীমা ৭.১ থেকে ১৪ পর্যন্ত হয়ে থাকে।

৭। এসিড=>প্রোটন দাতা বা ইলেকট্রন জোড় গ্রহীতা ; ক্ষার=>পানিতে দ্রবণীয় ক্ষারক(অক্সাইড বা হাইড্রক্সাইড), ক্ষার দ্রবণে হাইড্রক্সাইড আয়ন দেয়।
এসিড=> HCl, H2O, H3O^+, AlCl3, BCl3 ইত্যাদি।
ক্ষার=> NaOH, KOH, Na2O, K2O ইত্যাদি।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

  • পরিচিত পরিবেশের পদার্থগুলাের মধ্য থেকে অম্ল ও ক্ষার শনাক্তকরণ করতে পারবে,

পরিচিত পরিবেশের পদার্থগুলাের মধ্য থেকে অল্প জাতীয় পদার্থ হলাে : লেবু অম্ল জাতীয় পদার্থ শনাক্তকরণ পদ্ধতি:

১. টেষ্টটিউবে ২-৩ মিলিলিটার লেবুর রস নাও। প্রথমে চিমটা দিয়ে লাল লিটমাস কাগজ বিকারে নেওয়া লেবুর রসে ডুবাও। কাগজের রং কি পরিবর্তন হলাে ? না, হলাে না। এবার নীল লিটমাস কাগজ লেবুর রসে ডুবাও। এখন কি লিটমাস কাগজের রং পরিবর্তন হলাে? হ্যা, লিটমাস কাগজের রং নীল থেকে লাল হয়ে গেল।

২. লিটমাস কাগজ তৈরি করা হয় সাধারণ কাগজে লিচেন (Lichens) নামক এক ধরনের গাছ থেকে প্রাপ্ত রঙের সাহায্যে।

৩. এভাবে প্রাপ্ত লিটমাস কাগজ দেখতে লালবর্ণের হয়।এই লালবর্ণের লিটমাস কাগজকে যে কোনাে ক্ষারীয় দ্রবনে ডুবালে তা নীলবর্ণ ধারণ করে।

৪. অন্যদিকে নীলবর্ণের লিটমাস কাগজকে এসিড যােগ করলে তা লালবর্ণের লিটমাস কাগজে পরিণত হয়।

৫. অন্যদিকে লেবুর রসে থাকে সাইট্রিক এসিড। এতে যখন লাল লিটমাস ডুবানাে হয়, তখন কোনাে রাসায়নিক বিক্রিয়া হয় না, ফলে লিটমাস কাগজের রঙের কোনােই পরিবর্তন হয় না। পক্ষান্তরে নীল লিটমাস কাগজ ডুবালে, এতে লিটমাসের সাথে লেবুর সাইট্রিক এসিডের মধ্যে রাসায়নিক বিক্রিয়া ঘটে, ফলেলিটমাস কাগজের রং পরিবর্তিত হয়ে যায়। ৬. এসিডের একাট ধম হলাে এরা নাল লিটমাসকে লাল করে। লেবুর রসের মতাে আমলকি, করমচা, কামরাঙ্গা, বাতাবি লেবু, আঙুর ইত্যাদি টক লাগে, কারণ ফলগুলােতে নানা রকম এসিড থাকে। অর্থাৎ এটা বলা যায় যে, এসিডসমূহ টকস্বাদযুক্ত হয়।

পরিচিত পরিবেশের পদার্থগুলাের মধ্য থেকে ক্ষার জাতীয় পদার্থ হলাে:

চুন ক্ষার জাতীয় পদার্থ শনাক্তকরণ পদ্ধতি:

১. হাতমােজা পরে চামচ দিয়ে ৫-১০ গ্রাম চুন বিকারে নাও। এবার ড্রপার দিয়ে আস্তে আস্তে ১০০ মিলিলিটার পানি যােগ কর। নাড়ানি দিয়ে ভালােভাবে নাড়া দাও। এরপর ১০ মিনিট মিশ্রণটিকে রেখে দাও। সতর্কতার সাথে মিশ্রণের উপরিভাগ থেকে পরিষ্কার দ্রবণ আলাদা করে নাও। এই পরিষ্কার দ্রবণটিই হলাে চুনের পানি। এখন চুনের পানিতে চিমটা দিয়ে লাল ও নীল লিটমাস কাগজ ডুবাও। লিটমাস কাগজের রং কি পরিবর্তন হবে

২. লাল লিটমাস কাগজের রং পরিবর্তিত হয়ে নীল হয়ে গেল আর নীল লিটমাসের রং পরিবর্তন হলাে না।

৩. চুনের পানিতে থাকা Ca(OH)2 এর মতাে যে সকল রাসায়নিক পদার্থ লাল লিটমাস কাগজকে নীল করে তাদেরকে আমরা ক্ষারক বলি।

৪. সােডিয়াম হাইড্রক্সাইড (NaOH) একটি ক্ষারক যা সাবান তৈরির একটি মূল উপাদান। এটি কাগজ ও রেয়ন শিল্পেও ব্যবহৃত হয়।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

  • গৃহস্থালি ব্যবহার্য পদার্থের ওপর অল্প ও ক্ষার জাতীয় দ্রব্যের প্রভাবের আর্থিক গুরুত্ব বর্ণনা করতে পারবে,

অম্ল বা এসিড জাতীয় দ্রব্যের প্রভাবের আর্থিক গুরুত্ব : আমাদের দৈনন্দিন জীবনে গৃহস্থালি ব্যবহার্য এবং শিল্প কারখানায় এসিডের ব্যবহার অনস্বীকার্য। আমরা টয়লেট পরিষ্কারের কাজে যে সমস্ত পরিষ্কারক ব্যবহার করি তাতে থাকে এসিড। সােনার গহনা তৈরির সময় স্বর্ণকাররা নাইট্রিক এসিড ব্যবহার করেন। আমরা বিভিন্ন কাজে যেমন: আইপিএস, গাড়ি, মাইক বাজানাের সময়, সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদন ইত্যাদি ক্ষেত্রে যে ব্যাটারি ব্যবহার করি তাতে সালফিউরিক এসিড ব্যবহৃত হয়। সাপের উপদ্রব ।

কমানাের জন্য কার্বোলিক এসিড ব্যবহার করা হয়। খাদ্যদ্রব্য হজম করার জন্য পাকস্থলীতে হাইড্রোক্লোরিক এসিড অত্যাবশ্যকীয় এবং সার কারখানায় অতি প্রয়ােজনীয় একটি উপাদান হলাে সালফিউরিক এসিড। ডিটারজেন্ট থেকে শুরু করে নানারকম রং, ঔষধপত্র, কীটনাশকসহ পেইন্ট, কাগজ, বিস্ফোরক ও রেয়ন তৈরিতে প্রচুর H2SO4 ব্যবহৃত হয়।

কোনাে একটি দেশ কতটা শিল্পোন্নত তা বিচার করা হয় ঐ দেশ কতটুকু H2SO4 তৈরি করে তার উপর ভিত্তি করে। ইস্পাত তৈরির কারখানায়, ঔষধ, চামড়া শিল্প ইত্যাদি অনেক শিল্পে HCI ব্যবহৃত হয়। সার কারখানায়, বিস্ফোরক প্রস্তুতি, খনি থেকে মূল্যবান ধাতু যেমন সােনা আহরণে ও রকেটে জ্বালানির সাথে HNO3 ব্যবহৃত হয়। আমাদের গৃহস্থালি ব্যবহার্য। কাজে এসিডের ব্যবহারে অনেক প্রভাব রয়েছে আমাদের প্রায় সব কাজে এসিড প্রয়ােজন হয়। দৈনন্দিন ঔষধপত্র থেকে শুরু করে হারপিক তৈরীতে এসিড ব্যবহার হয় যা আমাদের আর্থিকভাবে অনেক প্রভবাবিত করে। ক্ষার জাতীয় দ্রব্যের প্রভাবের আর্থিক গুরুত্ব: ক্ষারকের অনেক রকমের ব্যবহার রয়েছে।

এমনকি আমরা আমাদের নিত্যদিনের কাজের মধ্যে ক্ষারক ব্যবহার করে থাকি। আমরা আমাদের ঘরবাড়ি পরিষ্কার করার জন্য ক্যালসিয়াম হাইড্রক্সাইড (Ca(OH)2)ব্যবহার করি। অনেক প্রকার পােকামাকড় দমন করার উদ্দেশ্যে আমরা ক্ষারক ব্যবহার করি। গ্যাসের সমস্যা নিবারনের জন্য আমরা গ্যাস্ট্রিক জাতীয় ওষুধ গ্রহন করি। এই গ্যাস্টিক জাতীয় ওষুধ অর্থাৎ এন্টাসিড তৈরির মূল উপাদান হলাে ম্যাগনেসিয়াম হাইড্রোক্সাইড(Mg(OH)2) যা একটি প্রয়ােজনীয় ক্ষারক। অনেক সময় এসিড ব্যবহার করার সময় এসিডের পরিমান বেড়ে যায় এবং দুর্ঘটনা হওয়ার সম্ভবনা থেকে যায়। সেই ক্ষেত্রে ক্ষার দিলেই এসিডের পরিমান অনেকাংশে কমে যাবে এবং দুর্ঘটনা থেকেও রক্ষা পাওয়া যাবে।

সাবান তৈরীতে ক্ষারক ব্যবহার করা হয় আমাদের গৃহস্থালি ব্যবহার্য কাজে ক্ষারকের ব্যবহারে অনেক প্রভাব রয়েছে আমাদের অনেক প্রয়ােজনীয় কাজে ও বস্তু তৈরীতে ক্ষারের প্রয়ােজন হয়। ক্ষারের ব্যবহার আমাদের জীবনে আর্থিকভাবে অনেক প্রভবাবিত করে।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

সবার আগে Assignment আপডেট পেতে Follower ক্লিক করুন

এসাইনমেন্ট সম্পর্কে প্রশ্ন ও মতামত জানাতে পারেন আমাদের কে Google News <>YouTube : Like Page ইমেল : assignment@banglanewsexpress.com

অন্য সকল ক্লাস এর অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর সমূহ :-

  • ২০২১ সালের SSC / দাখিলা পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ২০২১ সালের HSC / আলিম পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ভোকেশনাল: ৯ম/১০ শ্রেণি পরীক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ২০২২ সালের ভোকেশনাল ও দাখিল (১০ম শ্রেণির) অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • HSC (বিএম-ভোকে- ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স) ১১শ ও ১২শ শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ২০২২ সালের ১০ম শ্রেণীর পরীক্ষার্থীদের SSC ও দাখিল এসাইনমেন্ট উত্তর লিংক
  • ২০২২ সালের ১১ম -১২ম শ্রেণীর পরীক্ষার্থীদের HSC ও Alim এসাইনমেন্ট উত্তর লিংক

৬ষ্ঠ শ্রেণীর এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১ , ৭ম শ্রেণীর এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১ ,

৮ম শ্রেণীর এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১ , ৯ম শ্রেণীর এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২১

বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস// https://www.banglanewsexpress.com/

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় SSC এসাইনমেন্ট :

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় HSC এসাইনমেন্ট :

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *