বাংলা গ্রন্থ সমালোচনা- চোখের বালি, চোখের বালি কাব্যের সার্থকতা আলোচনা,বিসিএস লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি চোখের বালি,চোখের বালি বিসিএস গ্রন্থ সমালোচনা

বাংলা গ্রন্থ সমালোচনা- চোখের বালি, চোখের বালি কাব্যের সার্থকতা আলোচনা,বিসিএস লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি চোখের বালি,চোখের বালি বিসিএস গ্রন্থ সমালোচনা

প্রশ্ন সমাধান শিক্ষা

বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস এর সর্বশেষ আপডেট পেতে Google News অনুসরণ করুন

শেয়ার করুন:

প্রশ্ন সমাধান: বাংলা গ্রন্থ সমালোচনা- চোখের বালি, চোখের বালি কাব্যের সার্থকতা আলোচনা,বিসিএস লিখিত পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি চোখের বালি,চোখের বালি বিসিএস গ্রন্থ সমালোচনা

উপন্যাসঃ চোখের বালি(১৯০৩)

রচয়িতাঃ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

১৯০৩ সালের কলকাতার সামাজিক প্রেক্ষাপটকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা এক মনস্তাত্ত্বিক টানাপোড়েনের কাহিনীই হলো চোখের বালি। কাহিনীটি পড়ছিলাম আর এই অনবদ্য মানব মন রহস্যের চাঁদোয়ায় ঢাকা পড়ে যেতে যেতে ভাবছিলাম, গুণিজনেরা এমনি এমনি বলেননি, ‘ মানব মন বড়ই রহস্যময়’।

গল্পের অন্যতম প্রধান চরিত্র গুলো যেমন মহেন্দ্র, আশালতা, বিহারী, রাজলক্ষী, অন্নপূর্না, তাদের নিয়ে বিশেষ কিছু বলার নেই, তবে যাকে কেন্দ্র করে পুরো কাহিনী কে নিয়ে যাওয়া হয়েছে অনন্য উচ্চতায়, তার ব্যাপারে যে কিছু না বললেই নয়।

বিনেদিনী নিতান্তই সাধারণ জীবনযাপন করছিল, কিন্তু ভাগ্যক্রমে সে রাজলক্ষীর বাড়িতে এসে যখন দেখলো আশালতার মতো অশিক্ষিতা, অানাড়ি একটা মেয়ে একদিন তার হতে যাওয়া সব কিছু আগলে বসে আছে, আর সে শিক্ষিত, অনিন্দ্য সুন্দর হওয়া সত্ত্বেও তার বিধবা হয়ে কুড়ে ঘরে একাকীত্বের কষ্ট কে বরণ করতে হয়েছে, তখন সে তার ভাগ্যের এমন নির্মম পরিহাস কে মেনে নিতে পারেনি। তারপর যখন দেখলো মহেন্দ্রের মতো বিহারীবাবুর মনও আশালতার প্রতি স্নেহাসিক্ত তখন তার অতৃপ্ত, অসহায় মন সবকিছু ছাড়খার করে দিতে চাইল।


আরো ও সাজেশন:-

কিন্তু বিনোদিনী শুধুমাত্র আশালতার কাছে জয়ী হতেই মহেন্দ্রর বিভ্রান্ত, চঞ্চল মনকে তার দিকে ধাবিত করতে মায়াজাল পেতেছিলো কিন্তু মহেন্দ্রকে সে সত্যিকার অর্থে কখনোই ভালোবাসেনি। তার সত্যিকার ভালোবাসা কিন্তু সত্যিকার পুরুষের জন্যই তোলা ছিলো। কার জন্য তা জানতে বইটা অবশ্যই পড়তে হবে।

আমাকে সবচেয়ে বেশি মুগ্ধ করেছে রবিঠাকুর মানবমনের সুক্ষ্ম সুক্ষ্ম বাকগুলোকে এত অপূর্ব সাবলিলতায় ফুটিয়ে তোলার আশ্চর্য ক্ষমতা। পরিশেষে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা। এই উপন্যাসে পরকীয়া কে মহিমান্বিত করা হয়নি। এই উপন্যাসের শুরুতেই বলা আছে, যে মানুষগুলো সবসময় আমাদের চোখের সামনে থাকে, আমাদের আদরযত্নে রাখে তাদের কদর আমরা করিনা, আমাদের আকর্ষণ থাকে আলেয়ার প্রতি যাকে সহসা পাওয়া যায়না। মানব মনের এই সাধারণ প্রবৃত্তিকেই মহেন্দ্র আর বিনোদিনীর পরকীয়ার মাধ্যমে তিনি পাঠকের সামনে তুলে ধরেছেন।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

এই বইটি পড়ে আমি কৌতুহল বশতঃ চোখের বালি চলচিত্রটি দেখে নিয়েছিলাম। ঋতুপর্ণ ঘোষ পুরো গল্পটি বিকৃত করে উপস্থাপন করেছেন। বইটি না পড়ে মুভিটি দেখলে পুরোপুরি ভুল বার্তা পাবেন। তাই বইটি আগে পড়ে নেয়ার অনুরোধ রইলো। ক্লাসিক উপন্যাসের স্বাদ পেতে চাইলে এই বইটি অনন্য।

প্রশ্ন ও মতামত জানাতে পারেন আমাদের কে ইমেল : info@banglanewsexpress.com

আমরা আছি নিচের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুলোতে ও

শেয়ার করুন:

বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস এর সর্বশেষ আপডেট পেতে Google News অনুসরণ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *