ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভূমিকা ব্যাখ্যা কর, ইসলামি ব্যাংকের ভূমিকা লিখ, ইসলামী রাষ্ট্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভূমিকা ব্যাখ্যা কর, ইসলামি ব্যাংকের ভূমিকা লিখ, ইসলামী রাষ্ট্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

প্রশ্ন সমাধান শিক্ষা

বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস এর সর্বশেষ আপডেট পেতে Google News অনুসরণ করুন

শেয়ার করুন:

প্রশ্ন সমাধান: ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভূমিকা ব্যাখ্যা কর, ইসলামি ব্যাংকের ভূমিকা লিখ, ইসলামী রাষ্ট্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

ভূমিকা : ইসলামি কাঠামোর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভূমিকা সম্বন্ধে আলোচনায় না করলে ইসলামি ব্যাংক পদ্ধতি সম্বন্ধে আলোচনা সম্পূর্ণ হবে না। কার্যরত ইসলামি ব্যাংকিং পদ্ধতির কেন্দ্রবিন্দুই হলো কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সাধারণভাবে বিশ্বাস করা হয় যে, ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কার্যক্রম ও দায়দায়িত্ব সনাতন ব্যাংকের মতোই হবে। এটা আদৌ সত্য নয়।

নিম্নে ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভূমিকা ব্যাখ্যা করা হলো :

(ক) স্বাভাবিক কার্যক্রম : এক্ষেত্রে উভয় ধরনের ব্যাংকের কার্যক্রমে মৌলিক কোনো পার্থক্য নেই, বরং ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংককে সনাতন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুসৃত স্বাভাবিক কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হবে। এগুলো হলো :

(i) ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংক মোট ইস্যু করবে এবং সরকারের সাথে পরামর্শক্রমে মুদ্রার অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক মূল্যের স্থিতিশীলতা বজায় রাখার দায়িত্ব পালন করবে।

(ii) এই ব্যাংক সকল ব্যাংকের ব্যাংক ও সরকারের ব্যাংক হিসাবে কাজ করবে ।

(iii) একটি নিকাশ ঘরের কাজ করবে অর্থাৎ বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর চেকের দায়দায়িত্ব পরিশোধ করবে এবং

(iv) ঋণদানের শেষ আশ্রয়স্থল হিসাবেও কাজ করবে।

(খ) তত্ত্বাবধায়ক কার্যক্রম : সনাতন ও ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংক উভয়েরই দায়িত্ব যদিও বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহের তত্ত্বাবধায়ক পরিচালনাও নিয়ন্ত্রণ তবুও এসব কাজের আঞ্জাম দেওয়ার দায়িত্ব ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংকেরই বেশি।

এর কারণ ইসলামি ব্যবস্থায় ঝুঁকি পরিমাণ খুব বেশি। মনে রাখতে হবে ইসলামি ব্যাংকগুলো তাদের মক্কেলদের সাথে ব্যবসায়ের অনিশ্চয়তাও ঝুঁকি শরিক হয়। তাই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অন্যতম অতিরিক্ত দায়িত্ব হলো বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর যেন অতিমাত্রায় ঝুঁকিপূর্ণ উদ্যোগ বা ফটকাবাজির ধরনের বিনিয়োগে অংশ না
নেয় তা দেখা।


আরো ও সাজেশন:-

(গ) বিশেষ কার্যক্রম : উপরে বর্ণিত কার্যক্রমের বাইরেও ইসলামি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কিছু বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ দায়িত্ব রয়েছে। সেগুলোর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি হলো :

(i) দেশের ইসলামি ব্যাংকিং জগতে প্রবেশ করলে সুদভিত্তিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের সাথে সম্পর্কিত আইনসমূহের পর্যালোচনা এবং ইসলামি শরিয়াহের আলোকে সেগুলোর সংশোধন বা পুনর্গঠন করা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অপরিহার্য দায়িত্ব হয়ে দাঁড়ায় ।

এলক্ষে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিশেষ দায়িত্ব হবে ।

১. বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহের আমানত ও সম্পদের প্রকৃতি ও পরিমাণের সাথে সম্পর্ক রেখে ন্যূনতম মূলধন ও রিজার্ভের পরিমাণ ও তারল্যের হার নির্ধারণ করা।
২. আমানতকারীদের তহবিলের নিরাপত্তা নিশ্চয়তা বিধানের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ এবং

৩. ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ যেন ব্যাংকের তহবিলের অপব্যবহার না করে সেজন্য সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা ।

[ বি:দ্র: নমুনা উত্তর দাতা: রাকিব হোসেন সজল ©সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত (বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস)]

(ii) ইসলামি ব্যাংকিং পদ্ধতিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক যে যে উদ্দেশ্য অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে ফাইন্যান্স করা যাবে না বা যাবে তার নির্দেশনা দেবে এবং এর সর্বোচ্চ মাত্রা নির্ধারণ করবে। ক্যাশ মার্কিন এবং ফাইনান্সিং এর ক্ষেত্রে গৃহীতব্য জামানতেরও অনুপাত নির্দিষ্ট করে দেবে।

(iii) ইসলামি নীতিমালা অনুসারে অফিসার অন্যান্য কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ দানের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

উপসংহার : আলোচনার পরিশেষে আমরা বলতে পারি যে, তত্ত্বাবধায়কমূলক দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় ব্যাংক যেন কোনক্রমেই অতিরিক্ত রক্ষণশীল না হয় সেদিকেও সতর্ক দৃষ্টি রাখা প্রয়োজন ।

প্রশ্ন ও মতামত জানাতে পারেন আমাদের কে ইমেল : info@banglanewsexpress.com

আমরা আছি নিচের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুলোতে ও

শেয়ার করুন:

বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস এর সর্বশেষ আপডেট পেতে Google News অনুসরণ করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *