১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বৃদ্ধি

১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি বৃদ্ধি

জাতীয় দেশ
শেয়ার করুন:

বিশ্বব্যাপী করোনার ভাইরাস মহামারির কারণে দেশের সব সরকারি-বেসরকারি স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও কোচিং সেন্টারের ছুটি আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। এসময়ে দেশের সব প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্ডেন স্কুলগুলোও বন্ধ থাকবে। করোনা ভাইরাস সংক্রমন থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষিত রাখতে ছুটি বাড়ানো হয়েছে। এ সময়ে নিজেদের এবং অন্যদের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষিত থাকতে শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থান করতে বলা হয়েছে। তবে, কওমি মাদরাাসায় যথারীতি ক্লাস ও পরীক্ষা চলবে।

শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের দৈনিক শিক্ষাডটকমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ ২০২০ প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর গত ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর  ৩০ জানুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত ছুটি ছিল, সেই ছুটি এবার ১৪ ই ফেব্রুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত বাড়লো। ছুটি চলাকালে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম চলমান থাকবে।  

কোভিড-১৯ মহামারির কারণে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এরমাধ্যমে সর্বশেষ দফায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানো হলো বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন। করোনার কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে কয়েক দফায় বন্ধ রয়েছে দেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তবে কয়েকমাস আগে কওমি মাদ্রাসা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানায় সরকার।

আজ শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষের সাথে আলোচনা করে ফের ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্তের কথা জানান। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। দেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর আগামীকাল শনিবার (৩০ জানুয়ারি) পর্যন্ত ছুটি ছিল।

সেই ছুটি এবার ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়লো। ছুটি চলাকালে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে এম এ খায়ের জানিয়েছেন। তবে এরইমধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এজন্য সময় দেওয়া হয়েছে। এরপরই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেওয়া হতে পারে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। সে হিসেবে সর্বশেষ দফায় ছুটি বৃদ্ধি করা হলো বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।

জানা গেছে, দেশের সব মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ, উচ্চ মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক স্তুরযুক্ত উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় খোলার জন্য প্রস্তুত কিনা, আর প্রস্তুত না হলে কেন তা জানতে চেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। গত ২২ জানুয়ারি এ সংক্রান্ত একটিগাইড লাইন সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রেরণ করা হয়েছে।

এটি বাস্তবায়নে সকল আঞ্চলিক পরিচালক, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এবং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা কি নিজ অঞ্চল, জেলা এবং উপজেলার সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ কার্যক্রম যথাযথভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে কি না তা পরিবীক্ষণের মাধ্যমে নিশ্চিত করে ই-মেইলের মাধ্যমে জানাতে হবে। বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) মাউশির মনিটরিং এন্ড ইভ্যালুয়েশন উইং এর সহকারী পরিচালক মোহছেনা বেগম স্বাক্ষরিত এক স্মারকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এটি সকল আঞ্চলিক পরিচালক, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এবং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গত ২২ জানুয়ারি এক নোটিশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় খোলার জন্য গাইডলাইন অনুযায়ী শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা আগামী ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে গ্রহণ করতে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের প্রতি নির্দেশনা দিয়েছিল মাউশি। নোটিশটিতে সই করেছিলেন মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক।

এর এক সপ্তাহ পর বৃহস্পতিবার ওই নোটিশে বলা হয়, দেশের সকল মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক স্তরযুক্ত উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে (সরকারি ও বেসরকারি) শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে ২২ জানুয়ারি একটি গাইড লাইন সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রেরণ করা হয়েছে। এ গাইডলাইন যথাযথ অনুসরণ করে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন, স্বাস্থ্যসম্মত, নিরাপদ ও আনন্দময় প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিজেদের প্রস্তুত কাছে কি না তা পরিবীক্ষণ করা প্রয়ােজন।

এতে কোভিড-১৯ মােকাবিলার পাশাপাশি মুজিব বর্ষ উপলক্ষ্যে স্থায়ীভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলােকে স্বাস্থ্যসম্মত, নিরাপদ ও আনন্দময় প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে গাইড লাইন অনুসরণপূর্বক যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে কি না তা পরিবীক্ষণ করার নির্দেশক্রমে অনুরােধ করা হয়েছে।

সব খবর এক সাথে বাংলা নিউজ এক্সপ্রেস

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *